UA-199656512-1
top of page

*#রাধাভাবে ভোরা গোরা!* *(#পর্ব_২৩/৪)* (চলবে)


*#রাধাভাবে ভোরা গোরা!*


*(#পর্ব_২৩/৪)*

(চলবে)


#মহাপ্রভুর_ভগবৎ তনু নিস্পন্দ জড়বৎ রামানন্দের কোলে শায়িত ! প্রাণারাধ্য মহাপ্রভুর হৃদয়বিদারক করুণ দৃশ্য দেখে স্বরূপ দামোদরের প্রাণ কেঁদে উঠল ৷ তাই স্বরূপ দামোদর প্রভুকে সুস্থির করবার অব্যর্থ উপায় রূপে উচ্চকণ্ঠে কৃষ্ণনাম সংকীর্তন করতে লাগল, সেই সংকীর্তনের প্রবল ঝঙ্কারে মহাপ্রভু সচকিত হয়ে উঠলেন ৷ মহাপ্রভুর কৃষ্ণবিরহ জর্জরিত স্পন্দনহীন দেহে যেন প্রাণের সঞ্চার হল ৷ মহাপ্রভু দুই চক্ষু মেলে উঠে বসলেন এবং অপলক নয়নে উদাসভাবে রামানন্দের দিকে তাকিয়ে থাকলেন ৷ সেই পলকশূন্য উদাস চাহনির নিগূঢ় মর্ম বুঝতে পেরে রামানন্দ রায় নিজ উত্তরীয় দিয়ে প্রেমময় মহাপ্রভুর নয়নের জল মুছিয়ে দিয়ে পরমপ্রীতি ও স্নেহভরে মাথায় হাত বুলিয়ে দিতে দিতে প্রেম গদগদ মধুর বচনে বলতে লাগলেন— #প্রভুগো ! তুমি কিন্তু আর এমনি-

ভাবে আকুলপ্রাণে কেঁদো না ৷ তুমি বুঝনা কেন, শ্যামসুন্দর তো আর বাহিরের কোন বস্তু সামগ্রী নন -‌ তিনি যে হৃদয়ের ধন,পরম রতন ৷ তাঁকে হৃদমাঝারে রাখতে হয় ৷ তিনি যে তোমার হৃদি-বৃন্দাবনের নিভৃত কুঞ্জে দিবানিশি সদা সর্বক্ষণই বিরাজ করছেন , আর তুমিও তো মানসনেত্রে তাঁর অপরূপ রূপমাধুরী দিবানিশি সর্বক্ষণ প্রাণ ভরে নিরীক্ষণ করছ ৷ যাঁর অপূর্ব সুন্দর রূপমাধুরীর দিকে মনপ্রাণ ঢেলে দিলে দগ্ধ নয়ন মনপ্রাণ চিরদিনের জন্য শীতল হয়, তুমি তো তাঁর রূপেই মনপ্রাণ ষোল আনা ঢেলে দিয়েছ ৷ সেই অপরূপ রূপ সাগরেই তো তুমি অনুদিন অনুক্ষণ নিমজ্জিত থাক ৷ তবে কেন তুমি শুধু শুধু তাঁর জন্য এমনিভাবে কেঁদে আকুল হও ৷ #আমি_এও_জানি—#তুমি_যাঁর_জন্য_দিবারাত্রি___বিলাপ_করছ_তাঁতে_ও_তোমাতে_কোন_প্রভেদ_নাই_!"

#প্রভুগো ! আর একটি কথা বলি তুমি দিবানিশি সর্বক্ষণই কেঁদে আকুল হও, সেই তোমার প্রাণনাথ শ্যামসুন্দর যে তোমার হৃদয়োৎসারিত সুতীব্র আকর্ষণে থাকতে না পেরে তোমার হৃদি-বৃন্দাবনের নিভৃত-কুঞ্জে তোমাকে নিয়ে নিত্যদিনই রাসলীলা করছেন ৷ শ্যামসুন্দরের সঙ্গে তোমার অন্তরে অন্তরে এই যে অপ্রাকৃত অপূর্ব মিলন ও সম্ভোগরসাস্বাদন তা বড়ই মধুর ৷

#প্রভুগো ! তুমিই তো

একদিকে যেমন রাসেশ্বরী মহাপ্রেমময়ী শ্রীরাধা, অন্যদিকে অন্তরে তুমি আনন্দময়ী শক্তিসহ সমগ্র বিশ্বসংসারের একমাত্র আকর্ষক কৃষ্ণচন্দ্র ৷

#প্রভুগো ! তোমার এই অলৌকিক লীলা তুমি না জানাইলে জীবের কি সাধ্য আছে তার তিলমাত্রও অনুধাবন করতে পারে ?

#প্রভুগো ! গোদাবরী তীরে

তুমিই তো কৃপা করে আমাকে তোমার স্বরূপ দর্শন করিয়েছিলে,

তুমিই না প্রকাশ করেছিলে #অন্তর_কৃষ্ণ_ও_বহির্রাধা_ভাবে_কলিপীড়িত_জীবেরত্রাণের_জন্য_তোমার_এই_অভিনব_ আবির্ভাব?

#তাই_বলি_প্রভুগো ! তুমি করুণার অবতার ৷ কলিহত জীবকে কৃষ্ণপ্রেমদানের মাধ্যমে ভবযন্ত্রনা হতে অব্যাহতি দিতেই তুমি অবতীর্ণ হয়েছ ৷

#প্রভুগো ! জীব ত্রাণের জন্য বিশুদ্ধ ভগবদ্ভক্তির যে চরম আদর্শ প্রদর্শন করে তুমি তোমার দিব্যতনুকে যেভাবে পীড়া দিতেছ তা অতীব হৃদয়—বিদারক, আমার কাছে বড়ই অসহনীয় হয়ে উঠছে ৷

#হে_প্রভু ! তুমি কি তোমার করুণরসাত্মক লীলাসংবরণ করে আমাদের মনে আনন্দ দান করবে না ?

#প্রভুগো ! আমাদের

একান্ত মিনতি তুমি তোমার চির সৌম্যরূপ প্রকাশ করে ভক্তপ্রাণ শীতল কর ৷

#এইকথা_বলে রামানন্দ রায় ও স্বরূপ দামোদর উচ্চকণ্ঠে কৃষ্ণনাম সংকীর্তনের মধুর ঝঙ্কারে আকাশ বাতাস পরিপূর্ণ করে তুলল ৷

#এইভাবে অত্যন্ত মরমী ভক্ত রামানন্দ রায়ের শ্রীমুখ নিঃসৃত হৃৎ-কর্ণ রসায়ণ কথা ও কৃষ্ণনাম সংকীর্তন শ্রবণ করে মহাপ্রভুর কর্ণে যেন মধুবর্ষণ হতে লাগল ৷ কৃষ্ণ-বিরহ ব্যাধির এক অব্যর্থ মহৌষধ স্বরূপ সুধামধুর কৃষ্ণকথা ও নাম সংকীর্তন শ্রবণ করতে করতে মহাপ্রভুর বিরহদগ্ধ প্রাণ শীতল হয়ে উঠল ৷

#মহাপ্রভুর_শ্রীমুখ

প্রশান্তভাব ধারণ করল, মুখে মৃদু অপূর্ব হাসির রেখা ফুটে উঠল ৷ সর্বাঙ্গ প্রেমানন্দে টলমল করতে লাগল ৷ মহাপ্রভুর সেইভাব দেখে রামানন্দ রায় ও স্বরূপ দামোদর কৃষ্ণপ্রেম পাথারে নিজেদের সম্পূর্ণ নিমজ্জিত করে পরমানন্দ অনুভব করতে লাগলেন ৷

#ঠিক_এই_ভাবেই_কতদিন_কতভাবে_যে_মহাপ্রভুর_সঙ্গমহিমায়_স্বরূপ_দামোদর_ও_রামানন্দ_রায়_পরমানন্দে_ #বিচিত্ররসানুভব_করতেন_তার_ইয়াত্তা_নাই৷

* * *

0 views0 comments
Be Inspired
bottom of page